নীড় কলরব (Nir Kolorob) – Bengali Poem for Kids by Debarchana Bhattacharya


see scribd embed

 
 

নীড় কলরব

 

দেবার্চনা ভট্টাচার্য্য

 

চড়ুই করেন কিচির মিচির
শালিক ছানা দিচ্ছে হানা
পায়রা হাঁকেন বকম্‌ বকম্‌
চালের আগে ভাত ছড়ালে
ময়ূর পেখম রঙ বাহারি
আসছে বুঝি বর্ষা রাণী
ঘর নাই থাক পূর্ণ যে তার
কোকিল ডাকে নতুন সাজে
রোজের ভোরে বেহাগ সুরে
লাল ঝুঁটি আর লম্বা ঠোঁটে
বাঁশির মত লম্বা ঠোঁট
শ্বেত বসনে লাগছে ভারী
ছোঁ মারে যেই এক নজরে
পড়ল যদি চিলের নজর
কাক বলে তায় সবাই চেনে
আবর্জনা কুড়িয়ে ফেলে
কান ফাটানো কাঃ কাঃ স্বরে
ঝাড়ুদারের নাম পেয়েছে
মাছরাঙা তার নামটি খাসা
যেই না পাওয়া মাছের দেখা
কপাত্‌ করে আস্ত সে মাছ
রাঙিয়ে দেহ নানা রঙে
ঠকাস ঠকাস খুটুর খুটুর
আস্ত গাছে ফোকল করে
কাঠের কাজে ব্যস্ত ভারী
ভাবছ কে সে কাঠঠোকরা
নাইবা হলো ইঁট সুরকি
খড়কুটোতেই ব্যস্ত ভারী
শেখায়নি কেউ হাতটি ধরে
তবুও খাসা বাঁধন ঠাসা
থপাস থপাস পুকুর জলে
জলের পরে স্থলেও চলে
রাজহংস নামটি যেন
সোনার ডিমের গল্প আছে
দিন ফুরোলো আকাশ যে তাই
হুতুম পেঁচায় বড্ড চেঁচায়
জেদ ধরেছে ছোট্ট ছেলে
ঘর ছেড়েছে তাই প্যাঁচানী
চোখ দুটোরও জোর বেড়েছে
প্যাঁচার ঘরে জমবে আসর
ব্যস্ত সবাই আপন কাজে
রাত ফুরালেই কাটবে আঁধার
চোখ ধাঁধাঁবে ঢুকবে যখন
সারবে আসর চট জলদি
যাক ফুরালো কাব্য কথা
এদের পাশে আমরা যেন
সমাজ জুড়ে সকল পাশে
আমরা আছি এদের সাথে
ছোট্টো খুদের ঝড়।
চিলেকোঠার ঘর।
রকম বোঝা তার।
মুখটি করেন ভার।
রঙিন জামা গায়।
নাচ দেখাবে তাই।
ছন্দ সুরের জোর।
বসন্তের ঐ ভোর।
কঁকঁর কঁকঁর রাগ।
মোরগ ভায়ার ডাক।
আর লম্বা দুটি পা।
বক-বকালির ছা।
সকল মুন্ডু পাত।
সবাই কুপোকাত।
রঙটি বেজায় কালো।
কাজ পেয়েছে ভালো।
মনের সুখে গায়।
বেজায় খুশি তায়।
জলের ধারে ঘর।
অমনি চেপে ধর।
মুখের মধ্যে ঠুসি।
মাছরাঙা তাই খুশি।
কাঠ কাটে দিন ভোর।
মস্ত ঠোঁটে জোর।
সময় নেইকো আর।
নামটি হলো তার।
নাইবা সিমেন্ট ঠাসা।
বুনতে নিজের বাসা।
বলেনি কেউ কর।
বাবুই পাখির ঘর।
জলের পোকা খায়।
আঙুল জোড়া তাই।
ভেবোনা কম ভাই।
ভুলে গেছ তাই।
অন্ধকারে সাজে।
মন বসেছে কাজে।
খাবার এখন চাই।
খাবার কোথায় পাই।
যেই হয়েছে রাত।
পড়বে রকম পাত।
লাগিয়ে বুকের জোর।
আসবে আবার ভোর।
ভোরের আলো ঘরে।
মধ্য রাতের পরে।
আসল কথা কই।
সকল ভাবে রই।
দেখতে এদের চাই।
এরাও আছে তাই।



download


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *